রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০৪:২৫ পূর্বাহ্ন

হজ নিয়ে প্রতারণায় নিষিদ্ধ লুৎফুর রহমান ফারুকী ও আকবর হজ গ্রুপ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
  • আপডেট সময় শনিবার, ৮ জুন, ২০২৪
মুফতি লুৎফুর রহমান ফারুকী
মুফতি লুৎফুর রহমান ফারুকী

হজযাত্রীদের সঙ্গে বিভিন্ন সময় প্রতারণা করে অর্থ আত্মসাৎ, জালিয়াতি, নানাবিধ গাফিলতি, অনিয়ম, অব্যবস্থাপনাসহ নানা কারণে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় মুফতি লুৎফুর রহমান ফারুকীকে হজ কার্যক্রমে নিষিদ্ধ করেছে। প্রতারণার দায়ে হজ-উমরার কার্যক্রমে কাউকে নিষিদ্ধ করার ঘটনা এটাই প্রথম।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের হজ অধিশাখা থেকে যুগ্মসচিব ড. মো: মঞ্জুরুল হক সাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনার স্বার্থে লুৎফুর রহমান ফারুকীর সঙ্গে হজ ও উমরা বিষয়ে কোনো ধরনের আর্থিক লেনদেন না করার জন্যও সর্বসাধারণের প্রতিও অনুরোধ জানানো হয়।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের হজ অধিশাখা থেকে যুগ্মসচিব ড. মো: মঞ্জুরুল হক সাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনার স্বার্থে লুৎফুর রহমান ফারুকীর সঙ্গে হজ ও উমরা বিষয়ে কোনো ধরনের আর্থিক লেনদেন না করার জন্যও সর্বসাধারণের প্রতিও অনুরোধ জানানো হয়।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের হজ অধিশাখা 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, হজযাত্রী, হজ এজেন্সির স্বত্বাধিকারী, অংশীদার এবং হজ কার্যক্রমের সংঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, গাজীপুর এয়ার ট্রাভেলস (হজ লাইসেন্স নং- ৭৮২)-এর স্বত্বাধিকারী লুৎফুর রহমান ফারুকী হজযাত্রীদের সংঙ্গে বিভিন্ন সময় প্রতারণা করে অর্থ আত্মসাৎ, হজযাত্রীদের হজে না নেওয়া, আকবর হজ গ্রুপ নাম দিয়ে হজে গমনে হজযাত্রীদের সঙ্গে প্রতারণা করা, হজে নিয়ে কষ্ট দেওয়া ইত্যাদি বিভিন্ন কারণে তার মালিকানাধীন গাজীপুর এয়ার ট্রাভেলসের হজ লাইসেন্সের কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

 

নিজের এজেন্সির কার্যক্রম না থাকায় লুৎফুর রহমান ফারুকী চলতি হজ মৌসুমে নর্থ বেঙ্গল হজ ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস (লাইসেন্স নং- ১০৮৬) নামের একটি এজেন্সির মোনাজ্জেম নিযুক্ত হন। বর্ণিত এজেন্সিটি ২০২৪ সনের হজ মৌসুমে লিড এজেন্সি হিসাবে হজ কার্যক্রমে অংশ নেয়। এই এজেন্সির নিজস্ব নিবন্ধিত কোনো হজ যাত্রী না থাকলেও মজিদ ট্রাভেলস ইন্টারন্যাশনাল (লাইসেন্স নং- ৯৯০) নামের একটি এজেন্সির নিবন্ধিত ২৫৪ জন হজযাত্রীকে নর্থ বেঙ্গল হজ ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস এজেন্সিতে স্থানান্তর করে হজের কার্যক্রম করছে। তাছাড়া মেসার্স শিকদার এয়ার ট্রাভেলস (লাইসেন্স নং- ৯২৯)-এর নিবন্ধিত ৪২৮ জন হজযাত্রীকে আল রিসান ট্রাভেলস এজেন্সি লি. (লাইসেন্স নং- ৬৭২) নামক একটি এজেন্সিতে স্থানান্তর করে লিড এজেন্সি হিসেবে এজেন্সিটি হজ কার্যক্রমে অংশ নেয়।

এই দুই এজেন্সির ৬৮২ জন হজযাত্রীর কর্তৃত্ব লুৎফুর রহমান ফারুকী গ্রহণ করে প্রিমিয়ার ব্যাংকের মহাখালী শাখা, ঢাকা থেকে হজযাত্রীর বিপরীতে এজেন্সির নামে ঋণ গ্রহণ করে। হজযাত্রীর সম্পূর্ণ টাকা না পাওয়ায় প্রিমিয়ার ব্যাংক লি. ৬৮২ জন হজযাত্রীর মধ্যে ৩৬৪ জন হজযাত্রীর বিমান টিকেট ক্রয়ের জন্য অর্থ প্রদান না করায় হজযাত্রীদের টিকিট ক্রয়ে জটিলতা সৃষ্টি হয়। ফলে তাদের হজ গমন অনিশ্চিত হয়ে পড়ে।

লুৎফুর রহমান ফারুকী হজযাত্রীদের মোনাজ্জেম নিযুক্ত হয়ে হজযাত্রীদের হজে গমনের কোনোরুপ ব্যবস্থা গ্রহণ না করে এবং হজযাত্রীদের জন্য মক্কা-মদিনায় বাড়ি-ভাড়া, ভিসা করা, বিমান টিকিট ক্রয়ের মত গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো না করে দেশ থেকে গোপনে পালিয়ে গিয়েছেন মর্মে জানা যায়। এমন কার্যক্রমের ফলে সৌদি আরবে বাংলাদেশের সম্মান নষ্ট হচ্ছে। লুৎফুর রহমান ফারুকীর এমন কাজ দেশ বিরোধী যা, হজ ও উমরা ব্যবস্থাপনা আইন ২০২১ অনুসারে অনিয়ম ও অসদাচরণ এবং এরুপ কার্যক্রম সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনার অন্তরায়।

এ অবস্থায়, লুৎফুর রহমান ফারুকীকে ভবিষ্যতে সব ধরনের হজ ও উমরা কার্যক্রমে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হলো। একই সঙ্গে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধিত কোনো হজ এজেন্সি তার সংঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে হজ কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করলে সেই এজেন্সির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

হজ ট্রেড সেক্টরে কম টাকায় হজ করানোর আলোচিত ব্যক্তি মুফতি লুৎফুর রহমান ফারুকী। সারাদেশে গ্রুপ লিডারদের মাধ্যমে কম টাকায় হজযাত্রী সংগ্রহ করে থাকেন। হজ নিয়ে নানা অনিয়মের কারণে লুৎফুর রহমান ফারুকী একাধিকবার গ্রেফতার হন। এবার মন্ত্রণালয় তাকে হজ কার্যক্রমে নিষিদ্ধ ঘোষণা করল।

এ বিষয়ে কথা বলতে সৌদি আরবে অবস্থান করা মুফতি লুৎফর রহমান ফারুকীর মোবাইলে একাধিকবার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

তাহার ফেইজবুক আইডিতে থেকে সে নিয়মিত পোস্ট দিলেও হজযাত্রীদের বিষয়ে তাহার কোন সমাধানের কোন উদ্দোগ দেখা যায় না ।

তাহার ফেইজবুক আইডি লিংক এখানে 

 

আমাদের সোস্যাল মিডিয়া

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর