Warning: Creating default object from empty value in /home/hajjncomewsbd/public_html/wp-content/themes/bestnews/lib/ReduxCore/inc/class.redux_filesystem.php on line 29
Best Hajj Umrah Aviation News Portal In Bangladesh প্রকৃত অর্থেই সৌদি জনগন রমজান মাসকে ইবাদতের মাস হিসেবে মূল্যায়ণ করে থাকে প্রকৃত অর্থেই সৌদি জনগন রমজান মাসকে ইবাদতের মাস হিসেবে মূল্যায়ণ করে থাকে – Best Hajj Umrah Aviation News Portal In Bangladesh
Warning: Use of undefined constant jquery - assumed 'jquery' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/hajjncomewsbd/public_html/wp-content/themes/bestnews/functions.php on line 28

শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১২:১৬ অপরাহ্ন

pic
সংবাদ শিরোনাম ::
ওমরাহ শুরুর অপেক্ষায় যাত্রী ও এজেন্সিগুলো শিগগিরই প্রস্তুতি শুরু করবে সৌদি আরব করোনা-কালের জীবনগাথা করোনায় স্থগিত হতে পারে চলতি বছরের হজ হটলাইনে ফোন করলে বাড়ি গিয়ে করোনার নমুনা সংগ্রহ কিভাবে সৌদী আরবে গ্রীন কার্ডের জন্য আবেদন করবেন ? সিন্ডিকেটের দখলে ওমরা টিকিট চটকদার উমরার প্যাকেজ থেকে সাবধান! হজযাত্রী পাঠাতে আন্তর্জাতিক বিমান পরিবহন সংস্থার সদস্য হতে হবে সদস্য হতে সর্বনিম্ন ৩০ লাখ টাকার ব্যাংক গ্যারান্টি উমরাহর খরচ বাড়ছে, সৌদি ফি নিয়ে ধূম্রজাল পকেট মারতেই হজে যায় তারা! উমরাহের নামে রোহিঙ্গা পাচার কারী যিনি হজেও রোহিঙ্গা পাচার করার জন্য নিবন্ধিত যাকাত আন্দোলনে রূপ নেবে যদি সবাই এগিয়ে আসি : অর্থমন্ত্রী বাংলাদেশ বিমানের হজ টিকেট বিক্রি শুরু সাধারণ হাজীদের মতো থাকতে হবে তাদের হজে বেসরকারি এজেন্সি মালিকদের স্টিকার দেবে না সৌদি আরব রমজানে ওমরা করলে হজের সমান সওয়াব হজযাত্রীর সঙ্গে প্রতারণা ফৌজদারি অপরাধ মক্কা-মদিনার কর্তৃত্ব সউদীর হারানোর শঙ্কা প্রবাসী ব্যবসায়ীরা শ্রমিক নিয়োগে ঝুঁকছেন ভারত ও পাকিস্তানের দিকে শ্রমবাজার হারানোর ঝুঁকি দূর করতে হবে ব্রুনাইতে প্রতারিত কর্মীরা দেশে ফিরতে পারছে না হজের প্রাক-নিবন্ধন চলবে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ট্যুরিজম বোর্ড সারাদেশে ‘হোম স্টে’ সার্ভিস চালু করবে পুলিশ সদস্যদের জন্য ১০ শতাংশ মূল্যছাড় ইউএস-বাংলার টিকিটে ‘তুয়ারি মাইরাং’ ঝরনা পর্যটকদের নজর কাড়ছে ঝুলন্ত বাগানের স্বপ্নভূমি সউদী আরবের ফায়ফা পবিত্র হজের প্রাক-নিবন্ধন ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সৌদিআরবে আটকেপড়াদের ফেরাতে ২৫ আগস্ট বিমানের বিশেষ ফ্লাইট নিকলী হাওরে একরাশ ভালো লাগা ও স্মৃতি টাঙ্গুয়ার হাওরে রাত্রিযাপন নিষিদ্ধ করা হলো যে আমল করলে হজের সাওয়াব পাওয়া যায় মক্কা মদীনার মসজিদ আধুনিকায়নের বিস্ময়কর গল্প-১ টিকেট সংকটের কারণ জানালো বিমান বাংলাদেশ ঢাকার অদূরে ভ্রমণের মনোরম জায়গা সারিঘাট ইতালিতে ভ্রমণে বাংলাদেশিদের জন্য সুখবর কাতারে ফেরার অনুমতি পেলেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা মানব পাচারের অভিযোগে লিবিয়ান নাগরিকসহ ৬ জন গ্রেফতার সৌদি আরবে আটকেপড়াদের ফেরাতে ২ টি বিশেষ ফ্লাইট চলতি মাসেই ৭০ টি রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করছে এমিরেটস এয়ারলাইন্স রাজকীয় সৌদী সরকারের হজ কৌশল প্রশংসিত হয়েছে হজযাত্রীরা হজ শেষে মক্কা ত্যাগ করছেন হজ শেষে ১৪ দিনের জন্য হোম কোয়ারেন্টাইনে হজযাত্রীরা এবারের হজ পালন করতে আসা কেউ করোনায় আক্রান্ত হয়নি শীগ্রই ওমরাহ চালু হতে যাচ্ছে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে হজে অংশগ্রহণের অসাধারন দৃশ্য
নোটিশ :
সারা বাংলাদেশে আমাদের সাংবাদিক প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে ।যোগযোগ :০১৯৭৭৭৭২৯২৯  
প্রকৃত অর্থেই সৌদি জনগন রমজান মাসকে ইবাদতের মাস হিসেবে মূল্যায়ণ করে থাকে

প্রকৃত অর্থেই সৌদি জনগন রমজান মাসকে ইবাদতের মাস হিসেবে মূল্যায়ণ করে থাকে

সৌদি আরবে রমজান।
আলহামদুলিল্লাহ! এবারের রমজান মাস সহ মোট আটটি রমজান মাস সৌদিতে কাটানোর সুযোগ হলো। সৌদি আরবের তেরোটি প্রদেশের চারটি প্রদেশে রমাজান মাসগুলো আমার অতিবাহিত করার সুযোগ হয়েছে। প্রদেশগুলো হলোঃ মদিনা, মক্কা-জেদ্দা, রিয়াদ এবং আল-বাহা। এ চারটি প্রদেশে আমার অভিজ্ঞতার আলোকে বলতে পারি যে, প্রকৃত অর্থেই সৌদি জনগন রমজান মাসকে ইবাদতের মাস হিসেবে মূল্যায়ণ করে থাকে। সৌদি নাগরিকেরা যেভাবে রমজান মাসকে বরণ করে থাকে তা সংক্ষেপে নিম্নে উপস্থাপন করছি।

১- ক্বিয়ামুল লাইল/তারাবির সালাত।
সৌদিতে সাধারণত ৯৯℅ মসজিদে দীর্ঘ ক্বিরাতে বিতর সহ আট রাকাত তারাবির নামাজ আদায় করা হয়। মক্কার মসজিদুল হারাম এবং মদিনার মসজিদে নববী সহ আরো কিছু মসজিদে বিশ রাকাত তারাবির নামাজ আদায় করা হয়। মসজিদে নববীতে ইশার নামাজ সহ বিশ রাকাত তারাবির নামাজ আদায় করতে প্রায় দুই ঘন্টা দশ মিনিট চলে যায়। এখানে রাকাতের সংখ্যা কেন্দ্রিক কেউ আপনার সাথে বিতর্ক করবে না। তবে সবাই দীর্ঘ সময়ব্যাপী নামাজ পড়ার ব্যাপারে আপোষহীন।

২. খিমায় ইফতারির আয়োজনঃ
এখানে রোজাদার ব্যক্তির ইফতারি করানোর অংশ হিসেবে ইসলামিক সেন্টার, মসজিদ, স্কুল, পার্কের পাশে বা জনগুরুত্বপূর্ণ এলাকার খোলা ময়দানে শিততাপ নিয়ন্ত্রিত তাবুতে মাসব্যাপী ফ্রি ইফতারির আয়োজন করা হয়ে থাকে। সেখানে ৪০০-১০০০ হাজার বা তদুর্ধো রোজাদারের জন্য হরেক রকমের ইফতারির ব্যবস্থা থাকে। খেজুর, জুস, লাবান, কলা, খেবছা, পানি এগুলো কমন ইফতারি আইটেম। স্থানভেদে এর সাথে যোগ হয় আপেল, মাল্টা, স্যুপ, কেক, নানাপদের পিঠা সহ ইত্যাদি মুখরোচক খাবার। যেখানে আইটেম বেশি থাকে সেখানে অতিরিক্ত পলিথিনের প্যাকেট সরবরাহ করা হয় ইফতারি বাসায় নিয়ে যাওয়ার জন্য। সে এক এলাহি কারাবার!

৩.ইসলামী আলোচনা অনুষ্ঠানঃ
সৌদি আরবে কর্মরত শ্রমজীবিদের ইসলামী বিধিবিধান সম্পর্কে সম্যক ধারণা দানের উদ্দেশ্যে ভাষাভিত্তিক নির্ধারিত বিষয়ে ইফতারির খিমাগুলোতে আলোচনার ব্যবস্থা থাকে। সেখানে পালাক্রমে বাংলা, উর্দু, হিন্দি, কেরালা সহ ফিলিপাইনী ভাষায় আলোচনা করে থাকেন বিজ্ঞ উলামায়ে কেরাম। অনেক জায়গায় আলোচনা শেষে আলোচনার বিষয়বস্তুর আলোকে প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয় এবং সঠিক উত্তরদাতার জন্য পুরস্কারের ব্যবস্থা থাকে।

৪. চলতিপথে ইফতার-সামগ্রি বিতরণঃ
সৌদি আরবে রমজান মাসের আরেকটি জনহিতকর কাজ হলো চলতি পথে আপনার ইফতারি নিয়ে কোন টেনশন করতে হবে না। হয় পুলিশ চেকপয়েন্টে বা ফিলিং স্টেশনে অথবা রাস্তার পাশে কেউ আপনার জন্য ফ্রি ইফতারির পসরা নিয়ে অপেক্ষা করছে। এমনও দেখা যায় যে একটি স্পট থেকে ইফতারি পাওয়ার পর সামনে আরেকটি স্পটে আপনার গাড়ি থামিয় ইফতারি দেওয়ার জন্য জোরাজুরি করছে। এ এক মধুর বিড়ম্বনার দেশ!

৫- নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যে ছাড়ঃ
রমাজান মাসে সৌদি আরবে সবাই যখন সওয়াব অর্জনে ব্যস্ত তখন ব্যবসায়িক শ্রেনীই বা পিছনে পড়ে থাকবে কেন? তারাও আপনার জন্য নিত্যপ্রয়োজনীয় সকল পন্যে বিশাল মূল্যছাড় দিয়ে রেখেছে। যেখানে আমাদের দেশের ধান্দাবাজ ব্যবসায়ীকশ্রেনী ভেজাল জিনিস দিয়ে রোজাদারের পকেট কাটার জন্য এক মাস আগেই পন্যের মূল্য বাড়িয়ে দিয় আনন্দে মোচে তা দিতে থাকে। আহা রমজান মাস এসে গেলো, ফাঁকা পকেটটি এবং ব্যাঙ্কের একাউন্টটি নিশ্চয় এবার ফুলেফেঁপে উঠবে। পক্ষান্তরে সৌদি ব্যবসায়ীদের চিন্তা ঠিক এর বিপরীতে জনকল্যানমূখী।
সৌদি আরবে মূল্যছাড়ের একটু নমূনা দেখলাম গতকাল হাইপার পান্ডাতে গিয়ে। এক কিলো মাল্টার মূল্য দুই রিয়াল অর্থাৎ বাংলাদেশি টাকায় ৪৪ টাকা। বাংলাদেশে যেখানে দেড় কিলো ওজনেরএকটা অরেঞ্জ ট্যাং এর মূল্য ৯৯৯ টাকা, সেখানে সৌদিতে রমজান উপলক্ষ্যে আড়াই কিলো ট্যাং এর জার মাত্র ৪৫০ টাকা। এভাবে সকল পন্যেই রয়েছে চোখধাঁধানো ডিসকাউন্ট!

৬. রমজানে কুরআন শিক্ষার আসরঃ
রমজান মাস কুরআন নাজিলের মাস। এ মাসটিকে সিয়াম পালনের সাথে সাথে সৌদি জনগণ কুরআন তেলাওয়াতের প্রতি বেশ যত্নশীল। শুধু তাই নয়, এখানে বড় বড় কিছু কুরআনিক কোর্স আছে যেখানে অংশগ্রহণকারিদের জন্য বৃত্তির ব্যবস্থা রয়েছে। উপরন্তু আপনার বৃত্তির এমাউন্ট বৃদ্ধি পাবে যদি আপনি কোর্স শেষে পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করে উত্তীর্ণ হন।

৭. মসজিদে খাবারের ব্যবস্থাঃ
অনেক মসজিদে দেখেছি মাগরিব নামাজের পরে অথবা ইশার নামাজের সময় হরেক রমকমের পিঠা বা খেজুর অথবা অন্যকোন খাবার দরজার পাশে টেবিলের উপর কেউ রেখে দিয়েছে। আরব-অনারব, ছোট-বড় নির্বিশেষে সবাই সেখান থেকে নিয়ে আহার করছে। মসজিদ ভিত্তিক ফ্রিজে মিনারেল ওয়াটার তো সবসময়ের জন্য আছেই!

৮. সাদাকাতুল ফিতরঃ
এখানে ঈদের দুই বা একদিন আগে সাদাকাতুল ফিতর/ ফিতরা আদায় করা হয়। তিন কিলো পরিমান চাউল দিয়ে। হাদীসেও খাবার দিয়ে ফিতরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এবং সৌদি আরবের ফাতওয়া বোর্ডের ফাতওয়াও হলো এটি। সৌদি দরিদ্র ফ্যামিলিগুলোতে সাধারণত গাড়িতে করে ফিতরার চাউল পৌছে দেওয়া হয়। এখানে এলাকা ভিত্তিক ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট রয়েছে। তাদের নিকট অত্র এলাকার দরিদ্র ফ্যামিলির তালিকা সহ ঠিকানা রয়েছে। সেই ঠিকানাতে ঠিক ঈদের রাতে ফিতরার চাউল পৌঁছে যাবে। আপনাকে মানুষের দারে দারে ঘুরতে হবে না।
ব্যতিক্রম হলো যে সকল যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশগুলোর শরনার্থীরা সৌদিতে বসবাস করছে যেমনঃ মিয়ানমার, ফিলিস্তিন এবং সিরিয়া ইত্যাদি দেশের কিছু মহিলারা বোরকা পরে জায়নামাজ বিছিয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্থানের ফুটপথে বা মসজিদের পাশে বসে থাকে। সেখানে সৌদিরা গাড়িতে এসে ফিতরা দিয়ে যায়।

৯. রমজানে ওমরাঃ
ওমরা এমনিতেই গুরুত্বপূর্ণ একটি ইবাদত। সেটি রমজানে আরো গুরুত্বপূর্ণ এ জন্য যে রাসূল সাঃ বলেছেনঃ “রমজান মাসে উমরা আদায় করা আমার সাথে হজ করার সমতুল্য”। তাই রমজানে দেখা যায় আরব-অনারব সবার মাঝে কাবার পথের যাত্রী হওয়ার ব্যাকুলতা। এ জন্য সৌদি আরবের প্রতিটি ইসলামিক সেন্টার রমজানে মাসে উমরা আদায় করার জন্য ফ্রি বাস সার্ভিস দিয়ে থাকে। ২০১১ সালে নতুুন ছানায়া ইসলামিক সেন্টার রিয়াদ থেকে প্রতি বৃহস্পতিবার প্রায় ২৫ টির মত উমরার বাস ছেড়ে যেত মক্কার উদ্দেশ্যে।

১০. সৌদিতে সারা বছরই নব মুসলিমদের প্রতি এক্সট্রা কেয়ার রাখা হয়, এবং সারা বছরই দাওয়াতি কার্যক্রম চলমান থাকে। তবে সেটি রমজান মাসে আরো বেগবান হয়। বিশেষ করে নব মুসলিমদের জন্য বিশেষ ইফতারির আয়োজন, ইসলামিক কোর্স এবং আর্থিক সহযোগিতা আরো বৃদ্ধি করা হয়।

এছাড়াও জানা ও দেখার বাইরে আরো কার্যক্রম পরিচালিত হয় যার ধারাবাহিকতা রক্ষা করে চলেছে সৌদি সরকার এবং জনগন। তাই রমজান মাস সৌদিতে প্রকৃতপক্ষেই সিয়ামের মাস, ক্বিয়ামুল লাইলের মাস, কুরআনের মাস, দান সাদাকার মাস, ইবাদতের মাস, দরিদ্রদের প্রতি সহনুভূতি ও সহমর্মিতার মাস, ইসলাম প্রচারের মাস। আর এগুলোই হলো তাকওয়ার রুপ। আল্লাহ আমাদের দেশেও সৌদি আরবের ভালো কাজগুলো বাস্তবায়ন করার তাওফিক দান করুন।

লিখেছেন এক ভাই

তথ্য লিংক ঃ

শেয়ার করুন


Deprecated: WP_Query was called with an argument that is deprecated since version 3.1.0! caller_get_posts is deprecated. Use ignore_sticky_posts instead. in /home/hajjncomewsbd/public_html/wp-includes/functions.php on line 5143

Deprecated: Theme without comments.php is deprecated since version 3.0.0 with no alternative available. Please include a comments.php template in your theme. in /home/hajjncomewsbd/public_html/wp-includes/functions.php on line 5059

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | হজনিউজ.কম.বিডি, জিলহজ গ্রুপ বাংলাদেশ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Theme Download From ThemesBazar.Com
themesbihajjnews23